, ৫ আষাঢ় ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

‘অধিনায়ক’ আগারওয়ালের অবিশ্বাস্য ইনিংসে পাঞ্জাবের লড়াকু পুঁজি

  স্পোর্টস ডেস্ক

  প্রকাশ : 

‘অধিনায়ক’ আগারওয়ালের অবিশ্বাস্য ইনিংসে পাঞ্জাবের লড়াকু পুঁজি

দলের নেতৃত্ব পেয়েছেন এই ম্যাচেই। অধিনায়ক হিসেবে সবটুকু দায়িত্ব যেন একাই কাঁধে নিলেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। ওপেনিং থেকে নেমে একদম শেষ পর্যন্ত খেললেন। তবু একটু আক্ষেপ রয়েই গেল কি?


মাত্র এক রানের জন্য যে সেঞ্চুরিটা ছুঁতে পারলেন না পাঞ্জাব কিংস অধিনায়ক! থামলেন ৯৯ রানে। তার ৫৮ বলে গড়া হার না মানা ইনিংসে ভর করেই দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে ৬ উইকেটে ১৬৬ রানের পুঁজি পেয়েছে পাঞ্জাব।



ইনিংসের যখন তিন বল বাকি, আগারওয়ালের তখন ৮৫ রান। সেঞ্চুরি পেতে করতে হবে প্রায় অসাধ্য সাধন। চেষ্টাটা ঠিকই করলেন আগারওয়াল। আভেশ খানের ওভারটির চতুর্থ বলে চার মেরে পঞ্চমটিকে বানালেন ছক্কা। শেষ বলে আরেকটা ছক্কা হলেই হয়ে যেতো। কিন্তু আগারওয়ালকে বাউন্ডারিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হলো।


৫৮ বলে ৮ বাউন্ডারি আর ৪ ছক্কায় ৯৯ রানে অপরাজিত থাকেন আগারওয়াল। যা কিনা আইপিএলে নেতৃত্বের অভিষেকে কোনো ব্যাটসম্যানের দ্বিতীয় সেরা ইনিংস। প্রথমটিও (১১৯ রান) এই আসরেই করেছেন সঞ্জু স্যামসন রাজস্থান রয়্যালসের অধিনায়ক হিসেবে।

এক আগারওয়াল ছাড়া পাঞ্জাবের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে কেউই বলার মতো কিছু করতে পারেননি। দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংসটি ডেভিড মালানের, কিন্তু সেটা বেশ ধীরগতির। ২৬ বলে ২৬ রান করেন তিনি। ৯ বলে ১৩ রান আসে ক্রিস গেইলের ব্যাট থেকে।


প্রভুসিমরান সিং ১৬ বল খেলে করেন মাত্র ১২। বাকিদের কেউ দুই অংকও ছুঁতে পারেননি। ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আগারওয়াল খেলে না গেলে লড়াকু পুঁজি পর্যন্ত যাওয়া কিছুতেই সম্ভব হতো না পাঞ্জাবের।


দিল্লি ক্যাপিটালসের পক্ষে বল হাতে সবচেয়ে সফল কাগিসো রাবাদা। ৩৬ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন এই পেসার।

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা