, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

শিক্ষিকাকে মারধরের ঘটনা মিথ্যা, দাবি দফতরির পরিবারের

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

শিক্ষিকাকে মারধরের ঘটনা মিথ্যা, দাবি দফতরির পরিবারের

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকাকে মারধরের ঘটনা ভুয়া, মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবি করেছে গ্রেফতার দফতরি রাকিব খানের পরিবার। একইসঙ্গে ঘটনার সঠিক তদন্ত এবং চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি জানানো হয়েছে।

রোববার (৩০ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এসব দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রধান শিক্ষিকা ও দফতরি রাকিবের চাচা মো. ফেরদৌস বলেন, গফরগাঁও উপজেলার বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দফতরি রাকিব খান ও প্রধান শিক্ষিকা নিলুফা খানম সম্পর্কে আপন চাচাত ভাই-বোন। নিলুফা খানমকে মারধরের ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভুয়া ও বানোয়াট।

তার দাবি, দফতরি রাকিবের বাবা আলাল উদ্দিন মারা যাওয়ার পর থেকে সম্পত্তিতে চোখ পড়ে নিলুফা খানমের। সম্পত্তির ভাগ-ভাটোয়ারা নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। বিষয়টি স্থানীয়রাও অবগত রয়েছেন। এ ঘটনা জেরে বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুর ১২টার দিকে রাকিব ও নিলুফার মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এর জেরে নিলুফা খানম মারধরের অভিযোগ করেন। ঘটনার সঠিক তদন্ত না করেই রাকিব খানকে চাকরিচ্যুত করা হয় বলেও অভিযোগ তাদের।

সংবাদ সম্মেলনে রাকিব খানের ভাই নাদিম খান বলেন, ‘নিলুফা খানমের বাবা হাফিজ উদ্দিন মাস্টারের গাছ নাদিম খানের ঘরের ওপরে পড়ে। এ ঘটনা থেকেই নিলুফা খানমের সঙ্গে তাদের বিরোধ দেখা দেয়।’

এ বিষয়ে বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নিলুফা খানমের সঙ্গে যোগাযোগ করা তাকে মারধর করা হয়েছে দাবি করে লাইন কেটে দেন। এরপর ফোন দিলে তার নাম্বারটি বন্ধ দেখায়।

এ বিষয়ে গফরগাঁও প্রাথমিক সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার সবুজ মিয়া বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পেই। এ ঘটনায় রাকিব খানকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আবারও যদি কেউ তদন্তের দাবি করেন, তাহলে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে আবেদন করতে হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুর ২টার দিকে গফরগাঁওয়ের বারইহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নীলুফা খানমকে মারধরের অভিযোগ তোলেন। শুক্রবার (২৮ মে) দুপুর ২টায় বাদী হয়ে দফতরি মো. রকিব খান ও বড় ভাই নাদিম খানকে আসামি করে মামলা করেন।

এর আগে ওই দিন ভোরে বটতলা থেকে রাকিব খানকে আটক করে পুলিশ। সন্ধ্যার পর আদালতের নির্দেশে তাকে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ।

  • সর্বশেষ - মহানগর