, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

‘শেয়ারবাজারে সূচক কোনো ব্যাপার না’

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

‘শেয়ারবাজারে সূচক কোনো ব্যাপার না’

মূল্যসূচক ২০ হাজার পয়েন্টে উঠলেও তা কোনো বিষয় নয় এমন মন্তব্য করে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক রকিবুর রহমান বলেছেন, অনেকে আমার কাছে জিজ্ঞেস করেন এই বাজার টিকবে কি-না। আমি বলি ১০০ শতাংশ টিকবে।

শনিবার ডিএসইর নতুন ট্রেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ডিএসই চেয়ারম্যান ইউনুসুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

রকিবুর রহমান বলেন, আগামী বছর পাঁচ হাজার কোটি টাকা লেনদেন হবে। আর সূচক কোনো ব্যাপার না। এটি ১০ হাজার উঠবে, ১৫ হাজার উঠবে, ২০ হাজার উঠবে। এটি শুধু শেয়ার দরকে ইঙ্গিত করে।

তিনি বলেন, ভারতের শেয়ারবাজারের সূচক ৫৪ হাজার। সূচক কোনো ব্যাপার না। শেয়ারের দাম বাড়লে, সূচক বাড়বে। অনেকে শেয়ারবাজার টিকবে কি-না জিজ্ঞেস করে। আমি বলি ১০০ শতাংশ টিকবে। কারণ ট্রেডিং মার্কেট টিকে। তবে হ্যাঁ কারেকশন হতে পারে। যেমন ৫০ টাকার শেয়ার যখন ১০০ টাকায় উঠে, সেটি ৮০ টাকায় নামতে পারে। তবে সেটি ৫০ টাকায় নামবে না।

তিনি আরও বলেন, আপনারা দেখেন মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলো কী পরিমাণ লভ্যাংশ ঘোষণা দিয়েছে। এ খাতটি আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। পৃথিবীর সবদেশে মিউচ্যুয়াল ফান্ড বাজারকে স্থিতিশীল করে। দেশে সেই মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লভ্যাংশ ঘোষণা দেখে আমি নিজেই বেহুশ হয়ে গেছি। তাদের ব্যবসায়িক অর্জন দেখে অবাক হয়ে গেছি।

ডিএসইর এ পরিচালক বলেন, বর্তমান কমিশন শেয়ারবাজারকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরেছে। তারা এরই মধ্যে দুবাই ও আমেরিকা রোড শো করেছে। আমেরিকায়ও বাংলাদেশ অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, অনেকে ১০ লাখ টাকা এনে খেলাধুলা শুরু করে দেয়। এ করতে গিয়ে কোন দিক দিয়ে সেই টাকা চলে যায়, পরে চিল্লাচিল্লি করে। তবে এ বাজারে হাজারো বিনিয়োগকারী আছে। এখানে শুধু ছোট বা ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী না, আমরাও আছি। বড় বিনিয়োগকারীও আছে। তারা কিন্তু আবেগ দিয়ে চলে না। তাদের লস নাই। তারা বিনিয়োগ করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, আমরা শেয়ারবাজারকে একটা উচ্চতায় নিয়ে যেতে চাই।

তিনি বলেন, অনেকে না বুঝে শেয়ারবাজারকে অনুৎপাদনশীলখাত বলে। যেখানে আমরা প্রাইমারি ও বন্ড মার্কেটের মাধ্যমে ব্যবসা সম্প্রসারণ ও বিভিন্ন রকমের সহযোগিতা করে উৎপাদনশীলখাতগুলোর কার্যক্রমে সহযোগীতা করছি। তাদের দেশ থেকে দেশান্তরে এবং দেশের ভেতরে ব্যবসা সম্প্রসারণে আমরা সহযোগীতা করছি, সেগুলো সবই তো উৎপাদশীলখাতে যাচ্ছে। তাহলে এখানে এ কথাগুলো কেন আসছে?

তিনি আরও বলেন, বিবেকের কাছে জবাবদিহি করে আমরা কাজ করে যাবো। কেউ যদি বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে, সমালোচনা করে, না বুঝে কিছু বলে সেদিকে কর্ণপাত করে আমাদের সময় নষ্ট করবো না।

  • সর্বশেষ - অর্থ-বাণিজ্য