, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ অনলাইন সংস্করণ

মাথার অর্ধেক অংশ মাসেহ করলে অজু হবে?

  ধর্ম ডেস্ক

  প্রকাশ : 

মাথার অর্ধেক অংশ মাসেহ করলে অজু হবে?

প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজের আগে অজু করতে হয়। কারণ অজু ছাড়া নামাজ হয় না। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে মুমিনগণ, যখন তোমরা সালাতের জন্যে দাড়াও, তখন স্বীয় মুখমন্ডল দুই হাত ও কনুই পর্যন্ত পরিষ্কার করো, মাথা মসেহ করো এবং গিটসহ দুই পা পরিষ্কার করো।’ -(সুরা মায়িদা, আয়াত : ০৬)

হজরত আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘যার অজু নেই, তার নামাজ হবে না।’ -(সুনানে আবু দাউদ, হাদিস:  ১০১; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৩৯৮)

কোরআন এবং হাদিসের বর্ণনা অনুযায়ী অজুতে ৪টি বিষয় ফরজ। ফরজগুলো হলো- ১) মুখমণ্ডল পরিষ্কার করা। ২) কনুইসহ দুই হাতের কব্জি পরিষ্কার করা। ৩) মাথা মাসেহ করা। ৪) টাখনুসহ পা পরিষ্কার করা। 

অজু করার সময় এই অঙ্গগুলোর কোনটি শুকনো থাকলে অজু হবে না। তবে যদি কেউ অজু করতে গিয়ে পুরো মাথা মাসেহ না করে অর্ধেক মাথা মাসেহ করে তাহলে কি তার অজু হবে নাকি আবার নতুন করে অজু করতে হবে?

এ বিষয়ে ফুকাহায়ে কেরাম বলেন, অজুর সময় কেউ পুরো মাথা মাসেহ না করে অর্ধেক অংশ মাসেহ করলেও তার অজুর ফরজ আদায় হয়ে যাবে, কিন্তু পরিপূর্ণ সওয়াব ও সুন্নত আদায় করতে চাইলে পুরো অংশই মাসেহ করতে হবে। কেননা বহু হাদিসে পরিপূর্ণভাবে অজু করা এবং সুন্দরভাবে অজু করার প্রতি তাগিদ এসেছে এবং এর অনেক ফজিলত বর্ণিত হয়েছে।

উসমান (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেন, ‘যে ব্যক্তি উত্তমরূপে অজু করবে, তার (সমস্ত) শরীর থেকে পাপগুলো বেরিয়ে যাবে। এমনকি তার নখের নিচ থেকেও।’ (সহিহ মুসলিম, হাদিস : ২৪৫)

অন্য বর্ণনায় আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘আমি কি তোমাদের এমন বিষয় সম্পর্কে অবহিত করব না? যার দ্বারা আল্লাহ তায়ালা তোমাদের পাপগুলো মোচন করবেন এবং মর্যাদা বৃদ্ধি করবেন? (উত্তরে) তারা বললেন, হ্যাঁ, আবশ্যই। তিনি বললেন, (তা হলো) কষ্ট সত্ত্বেও পূর্ণরূপে অজু করা এবং বেশি বেশি মসজিদে যাওয়া এবং এক নামায আদায়ের পর পরবর্তী নামাজের জন্য অপেক্ষায় থাকা। এটাই হলো রিবাত (জিহাদের প্রস্তুতি নিয়ে সীমান্ত প্রতিরক্ষার মত)। -(সহীহ মুসলিম, হাদীস ২৫১)

-(সূত্র : কিতাবুল আছল : ১/৪৬; আলমাবসূত, সারাখসি : ১/৮; খুলাসাতুল ফাতাওয়া : ১/২৬; বাদায়িউস সানায়ি : ০১/৬৯; শরহুল মুনইয়া, পৃষ্ঠা : ১৮; আল-বাহরুর রায়িক : ১/১৪; রাদ্দুল মুহতার : ১/৯৯)

  • সর্বশেষ - অতিথি কলাম