, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

কমিউনিস্ট পার্টি আর নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে না

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

কমিউনিস্ট পার্টি আর নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে না

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, বাংলাদেশের কামিউনিস্ট পার্টি অতীতে অনেক ভুল করেছে। এ ভুলের খেসারত আজও দিতে হচ্ছে। আমরা আর ভুল করবো না। কমিউনিস্ট পার্টি আর নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে না।

ফরিদপুরে এক সমাবেশে এসব কথা বলেন সিপিবির এই নেতা। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এর সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট (ভিপি)।

ছাত্র ইউনিয়নের সাত দশক (১৯৫২-২০২২) পূর্তি উপলক্ষে অভিভাবক সংবর্ধনা, স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সংগ্রামের সাত দশক উদযাপন পরিষদ’। শনিবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে ফরিদপুর শহরের ফরিদপুর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয় ‘এসো মিলি মুক্তির পতাকাতলে’ আহ্বানকে সামনে রেখে।

ওই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিতে গিয়ে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, আমরা এখন থেকে যা করবো স্বাধীনভাবে করবো। নির্বাচন করবো স্বাধীনভাবে। এক বারে জিততে না পারি দুইবারে, দুইবারে জিততে না পারি তিনবারে জিতব। তবে বামপন্থীদের ক্ষমতায় আসতে হবে। দেশে শোষণহীন সমাজ ব্যবস্থা কায়েম করতে এর কোনো বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, আমরা বীরের জাতি। কিন্তু দুঃখজনক হলেও এ কথা সত্য যে, আমরা আমাদের বীরত্বের ফল ধরে রাখতে পারি না। আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলেম শত ফুল ফোটানোর জন্য। অন্যের কাছে হাত পাতার জন্য যুদ্ধ করিনি। সবাই চাকরি পাবে এবং মাস শেষে বেতন পাবে এমন একটি দেশের স্বপ্ন আমরা দেখেছিলাম। কিন্তু দেশ আজ লুটেরা শ্রেণির দখলে চলে গেছে। তারা টাকা লুট করে বিদেশে পাঠাচ্ছে। গত ১১ বছরে ১৬ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে।

মুজাহিদুল ইসলাম আরও বলেন, অনেকে বলেন, শেখ হাসিনার পেনাল্টি কখনও মিস হয় না। কেননা শেখ হাসিনা পেনাল্টি মারে গোল বারের দুই ফুট দূর থেকে এবং বল ঠেকানোর জন্য কোনো গোলকিপার থাকে না। এই সরকারের পায়ের নিচে কোনো মাটি নেই। এ সরকার জানে নির্বাচন করলে তারা হারবে। তাই বিএনপির সঙ্গে ৬০-৪০ আসনের জন্য দর কষাকষি করছে। তবে অবাধ নির্বাচন হলে এ সরকার টিকতে পারবে না।

তিনি ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ভেজাল মুক্তিযোদ্ধার মতো ভেজাল ছাত্র ইউনিয়ন হলে কাজ হবে না। মন ও মননে মানবিকতা থাকতে হবে তবেই সকলের মনে মানবিকতার মূল্যবোধ ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব হবে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রবীন ন্যাপ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা চিত্ত রঞ্জন ঘোষ।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন গোপালগঞ্জ সিপিবির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেন, ক্ষেত মজুর সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য  আব্দুল মালেক সিকদার, জেলা উদীচীর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব, প্রকৗেশলী শর্মিষ্ঠা সাহা, সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নিমাই গাঙ্গুলী ও রফিকুজ্জামান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সভা শুরু হয়। অনুষ্ঠানের মাঝে মাঝে বিপ্লবী গান পরিবেশন করে জেলা উদীচীর শিল্পীরা। পরে সকলকে আপ্যায়ন করা হয়।

  • সর্বশেষ - রাজনীতি