, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহ মহানগরে ৯ কাজীর নিয়োগ ঘিরে চিহ্নিত সিন্ডিকেটের কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য

  শাহ মোহাম্মদ রনি

  প্রকাশ : 

ময়মনসিংহ মহানগরে ৯ কাজীর নিয়োগ ঘিরে  চিহ্নিত সিন্ডিকেটের কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় শূন্য পদে ৯ কাজীর নিয়োগ ঘিরে চিহ্নিত সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় কাজী সমিতির একাংশ ও নিয়োগ না পাওয়ার আশঙ্কায় থাকা আবেদনকারীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা ‘সাজানো’ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিলের দাবি জানিয়েছেন। বিক্ষুব্ধরা পরবর্তীতে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে কাজী নিয়োগের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য আবেদন করেছেন। অন্যদিকে সংসদ নির্বাচনের সময় কাজী নিয়োগের প্রক্রিয়া করায় নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়েছে। অপরদিকে সরকারের বিপুল পরিমাণের কর ফাঁকি দেওয়ার জন্য ত্রুটিপূর্ণ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে। সূত্র মতে, চিহ্নিত সিন্ডিকেট নিয়োগ কনফার্ম করার জন্য পছন্দের আবেদনকারীদের কাছ থেকে ১৩ থেকে ১৪ লাখ করে টাকা ঘুষ নিয়েছে। সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি, জেলা প্রশাসন, জেলা রেজিস্ট্রার, ওয়ার্ড কাউন্সিলর (মঞ্জুরী উপদেষ্টা কমিটির সদস্য) এবং কাজী সমিতির কথা বলে উল্লেখিত টাকা নেওয়া হয়। ময়মনসিংহ মহানগরীতে ৯ কাজী নিয়োগের পুরো প্রক্রিয়ায় অনিয়ম ও দুর্নীতির আশ্রয় নেওয়ায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। জেলা রেজিস্ট্রার পথিক কুমার সাহা সোমবার দৈনিক জাগ্রত বাংলাকে বলেছেন, যথাযথ নিয়ম অনুসরণ করে ৯ জন কাজী নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। তবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেন নি। বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন।

জানা যায়, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের ১২, ১৬, ১৭, ১৮, ২৩, ২৯, ৩০, ৩১ ও ৩৩ ওয়ার্ডে শূন্য পদে নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) নিয়োগের জন্য ০১-১১-২০২৩ তারিখে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। জেলা রেজিস্ট্রার পথিক কুমার সাহা সাক্ষরিত পুনঃ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনকারীদের কাছ থেকে টিআইএন সনদ ও আয়কর রিটার্ন চাওয়া হয়নি। কাজী নিয়োগের নীতিমালা অনুযায়ী আবেদনকারীদের কাছ থেকে টিআইএন ও আয়কর সনদ নেওয়ার কথা। ত্রুটিপূর্ণ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করার জন্য নিবন্ধন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ছাড়াও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়েছে। অন্যদিকে পেছনের তারিখে ইস্যু করা চিঠি দিয়ে আবেদনকারীদের আজ মঙ্গলবার মৌখিক পরীক্ষার জন্য উপস্থিত থাকতে বলা হয়। ১৪-১২-২০২৩ তারিখে ইস্যু করা চিঠি বিতরণ করা হয় ২০ ডিসেম্বর বুধবার থেকে ২৪ ডিসেম্বর রবিবার পর্যন্ত। বিলম্বে মৌখিক পরীক্ষার চিঠি দেওয়ার ঘটনায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। নানান কারণেই আবেদনকারী ও কাজী সমিতির একাংশ ময়মনসিংহ মহানগরীতে কাজী নিয়োগ প্রক্রিয়াকে ত্রুটিপূর্ণ উল্লেখ করে বাতিলের দাবি জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, চিহ্নিত সিন্ডিকেট তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার ১৪ দিন আগে জেলা রেজিস্ট্রারকে দিয়ে পুনঃ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করায়। সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে নিয়োগ প্রক্রিয়া চূড়ান্ত না করে ভোট গ্রহণের ১১ দিন আগে মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়টি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন বলে নির্বাচন কমিশন সূত্র নিশ্চিত করেছে। কাজী নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী ওই এলাকার সাবেক কাজীর যোগ্য ছেলেকে নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা। কাজী নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ নেওয়া ও সিন্ডিকেটের কাছে কনফার্ম হওয়া কয়েকজন আবেদনকারী সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রকৃত স্থায়ী বাসিন্দা নন বলে সূত্র জানিয়েছে।


  • সর্বশেষ - মহানগর