ময়মনসিংহ, , ৮ বৈশাখ ১৪২৮ অনলাইন সংস্করণ

তামিমকে ছাড়িয়ে সবার ওপরে মুমিনুল

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

তামিমকে ছাড়িয়ে সবার ওপরে মুমিনুল

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রানের পর সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির খেতাবটাও হাতছাড়া হলো দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের। চলতি চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে দেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রানে টপকে গিয়েছিলেন মুশফিকুর রহীম। এবার সেঞ্চুরির রেকর্ডে সবার ওপরে উঠে গেলেন বর্তমান টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক।


সাগরিকায় ছড়াল মুমিনুলের সৌরভ- গত কয়েক বছরে প্রায় নিয়মিতই খবরের শিরোনাম হয়েছে এটি। চট্টগ্রামের সাগরিকায় অবস্থিত জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে খেলতে নামলেই বড় ইনিংস খেলেন মুমিনুল। শুধু তাই নয়, হাফসেঞ্চুরি পেলে সেটিকে রুপ দেন সেঞ্চুরিতে- এমনটাই যেন স্বাভাবিক চিত্র। ব্যতিক্রম ঘটল না নতুন বছরে বাংলাদেশ দলের প্রথম টেস্টেও।


এরই সঙ্গে এক ভেন্যুতে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ডেও আরেক ধাপ এগুলেন মুমিনুল। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে ১১টি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন লঙ্কান কিংবদন্তি মাহেলা জয়াবর্ধনে। এক ভেন্যুতে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ড এটি। এছাড়া মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ডন ব্র্যাডম্যান ৯টি, ক্যাপটাউনের নিউল্যান্ডসে জ্যাক ক্যালিসের সেঞ্চুরিও ৯টি। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব গ্রাউন্ডে কুমার সাঙ্গাকারার সেঞ্চুরি ৮টি।


এরপরই মুমিনুলের নাম। নির্দিষ্ট এক ভেন্যুতে ৭টি সেঞ্চুরি রয়েছে চারজন ব্যাটসম্যানের। তারা হলেন এডিলেইড ওভালে মাইকেল ক্লার্ক, গল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারা এবং জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মুমিনুলের রয়েছে ৭টি সেঞ্চুরি।


ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের ম্যাচটির প্রথম ইনিংসে ঠিক নিজের স্বাভাবিক ব্যাটিং করতে পারেননি মুমিনুল। তার স্বভাববিরুদ্ধে ইনিংসে ২৬ রান করতে খেলেছিলেন ৯৭ বল। দ্বিতীয় ইনিংসে আর এমন হয়নি। শুরু থেকেই ব্যাটিং করেছেন সাবলীলভাবে, সচল রেখেছেন রানের চাকা, আসতে দেননি কোনো চাপ।


দ্বিতীয় ইনিংসের ৬১তম ওভারে রাহকিম কর্নওয়ালের অফস্ট্যাম্পের বল আলতো করে ঠেলে দিয়েই এক রান নিয়ে নেন মুমিনুল, পৌঁছে যান ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরিতে। বাংলাদেশের পক্ষে তিনিই এখন সর্বোচ্চ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান। এতদিন ৯ সেঞ্চুরি নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে ছিলেন তামিম ও মুমিনুল। তালিকার পরের নামগুলো মুশফিকুর রহীম (৭), মোহাম্মদ আশরাফুল (৬) ও সাকিব (৫)।


ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি হলেও বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এটিই মুমিনুলের প্রথম সেঞ্চুরি। এছাড়া জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এ নিয়ে সপ্তম সেঞ্চুরি করলেন মুমিনুল। এ মাঠে ৮ বার পঞ্চাশ ছাড়িয়েছেন তিনি, সাতবারই সেটিকে রুপ দিলেন সেঞ্চুরি।


সেঞ্চুরিটি করতে মুমিনুল খেলেছেন ১৭৩ বল, যা তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ধীরগতির সেঞ্চুরি। নিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করতে মুমিনুল খেলেছিলেন ১৬৯ বল। এবার খেললেন ৪ বল বেশি। সেঞ্চুরি সংখ্যাকে দুই অঙ্কে ঠেকিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়ার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছেন মুমিনুল।


এই ইনিংসে ১১৪ রান করলেই ৩ হাজার রান হয়ে যাবে তার। বাংলাদেশের পক্ষে টেস্টে ৩ হাজার রান করা বাকিরা হলেন হাবিবুল বাশার সুমন, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম ও সাকিব আল হাসান। পঞ্চম বাংলাদেশি হিসেবে এই মাইলফলকে পা রাখার অপেক্ষায় মুমিনুল হক।


এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৯২ রান। ১৭৪ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ১০০ রানে অপরাজিত আছেন মুমিনুল। তাকে দারুণ সঙ্গ দিচ্ছেন লিটনও। ৬৪ রান নিয়ে ব্যাটিং করছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

  • সর্বশেষ - খেলাধুলা