, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জে যাত্রী সেজে টমটম ছিনতাই, গ্রেফতার ৭

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

হবিগঞ্জে যাত্রী সেজে টমটম ছিনতাই, গ্রেফতার ৭

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে যাত্রী সেজে টমটম ছিনতাইর ঘটনায় ৭ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে ছিনতাই করা টমটমটি। আজ শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নবীগঞ্জ থানার (ওসি) মোঃ মাসুক আলী। তিনি বলেন, গেল বছরের ২৪ ডিসেম্বর নবীগঞ্জ শহর থেকে একজন ছিনতাইকারী যাত্রী সেজে রতন দাশ নামে এক চালকের একটি টমটম ৮০ টাকায় রিজার্ভ নেয়। আর ছিনতাইকারী চক্রের অন্যান্য সদস্যরা অবস্থান নেয় নবীগঞ্জ থানাধীন এনাতাবাদ এলাকার একটি নির্জন স্থানে।

টমটমটি সেখানে পৌঁছা মাত্র অন্যান্য ছিনতাইকারীরা টমটম চালকের হাত পা বেঁধে মুখে স্কচটেপ পেচিয়ে টমটম, মোবাইল ফোনসহ যাবতীয় মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় রতন দাশ বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দায়েরের পর তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৩ ফেব্রুয়ারি রাতে ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য খাইরুল আহমেদকে গ্রেফতার করা হয়।

একপর্যায়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে পুরো ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দেয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে শনিবার দুপুর পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আরো ৬ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়। উদ্ধার করা হয়েছে ছিনতাই হওয়া টমটম ও মোবাইল ফোন। শনিবার বিকেলে গ্রেফতার ছিনতাইকারীদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতার ছিনতাইকারীরা হল, নবীগঞ্জ উপজেলার কুশি ইউনিয়নের এনাতাবাদ গ্রামের নজরুল ইসলামের পুত্র খাইরুল আহমেদ, একই গ্রামের আব্দুল মন্নাফের পুত্র রুমান মিয়া, রজব আলীর পুত্র মাসুম মিয়া, লেচু মিয়ার পুত্র রনি মিয়া, টেনাই মিয়ার পুত্র হারুন মিয়া, আব্দুল আলীমের পুত্র হাবিবুর রহমান ও মাধবপুর উপজেলার রাজেন্দ্রপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের পুত্র ইব্রাহিম মিয়া ওরফে খলিল।

  • সর্বশেষ - অন্যান্য