ময়মনসিংহ, , ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ অনলাইন সংস্করণ

ফজরের নামাজ পড়তে উঠলেন মা, মেরে ফেলল ছেলে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

  প্রকাশ : 

ফজরের নামাজ পড়তে উঠলেন মা, মেরে ফেলল ছেলে

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) ছেলের পাথরের আঘাতে মনোয়ারা বেগম (৪৫) নামে এক মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ছেলে মোস্তফাকে (৩২) আটক করেছে পুলিশ।


নিহত মনোয়ারা বেগম উপজেলার তারাটি ইউনিয়নের মৈশাদিয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী। ছেলে মোস্তফা কামাল দীর্ঘদিন ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানিয়েছে পুলিশ।


শুক্রবার (৬ নভেম্বর) সকালে উপজেলার মৈশাদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে দুপুরে ছেলেকে আসামি করে মুক্তাগাছা থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে।


পুলিশ জানায়, মোস্তফা কামাল মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় তাকে লোহার শিকল দিয়ে বাড়ির একটি খোলা ঘরে বেঁধে রাখা হতো। শুক্রবার ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে ওঠেন তার মা মনোয়ারা বেগম। এ সময় শিকল খুলে ঘরে থাকা ওজন মাপার পাথর দিয়ে মায়ের মাথায় আঘাত করে মোস্তফা। মনোয়ারা বেগম মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আবারও তার মাথায় আঘাত করে মোস্তফা। এতে ঘটনাস্থলেই মনোয়ারা বেগমের মৃত্যু হয়।


ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুক্তাগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, পাগল ছেলেকে খোলা একটি ঘরে খালি গায়ে বেঁধে রাখা হয়েছিল। সে সারারাত শীতে কাঁপছিল। এছাড়াও তাকে রাতের খাবার দেয়া হয়নি। সেই ক্ষোভেই হয়তো লোহার শিকল খুলে সে তার মাকে পাথর দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই মায়ের মৃত্যু হয়।


তিনি বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘাতক ছেলেকে আটক করা হয়েছে।


  • সর্বশেষ - ময়মনসিংহ অঞ্চল